মেনু নির্বাচন করুন
গল্প নয় সত্যি

The self-identity / history of Banihala Union

বানিহালা ইউনিয়ন মোগল আমলে সম্রাট আকবর যখন পাক ভরত উপমহাদেশের ঝিঝিয়া কর আদায় ও নির্ধারণ করনের লক্ষে সিদ্ধান্ত গ্রহন করেছিলেন তখন তিনি বিভিন্ন অঞ্চলে তাঁহার প্রতিনিধি প্রেরণ করেছিলেন। সম্রাট আকবর ব্যক্তিগত ভাবে হিন্দু সম্প্রদায় কে পছন্দ করিতেন এবং তাহার রাজকীয় কর্মকান্ডে প্রাধান্য দিতেন। তাই তিনি তৎকালীন নাসিরাবাদ বর্তমানে ময়মনসিংহ অঞ্চলের বিভিন্ন অংশ ও অংশ সমূহের সীমানা নির্ধারণের পাশাপাশি রাজস্ব কর ধার্য ও আদায়ের লক্ষ্যে অত্র অঞ্চলে “শ্রীযুক্ত শশি কান্ত মোখার্জি”কে প্রেরণ করেন। যা জনশ্রুতি হিসাবে উল্লেখ্য। শশি কান্ত মোখার্জি অত্র অঞ্চলে কোথাও তিনি নিজে ঘোড়ার গাড়িতে ও কোথায়ও ঘোড়ায় গমন করেন। অত:পর তিনি অত্র অঞ্চলের বিভিন্ন অংশ এবং অংশ সমূহ কতিপয় পরগনায় বিভক্ত করেন। যা পরবর্তী সময়ে তিনি এলাকার ‘প্রাকৃতিক পরিবেশ’বিশেষ বিশেষ নজরকারা বস্তু  এবং তাহার প্রিয় ব্যক্তি মানুষ তথা আপন জনের নাম ও সংমিশ্রিত নামের সমন্বয়ে বিভিন্ন অঞ্চল, পরগনা, এলাকার নামকরন করেছিলেন বলে অভিজ্ঞ মহলের ধারণা। সেই লক্ষে মুখার্জি বাবুর প্রিয় পাত্র তৎ কন্যাদ্বয় শ্রীমতি বানিশ্রী রানী ও শ্রীমতি হালাশ্রী রানী এই দুই নামের যুগল মিলনে বানিহালানামের সৃষ্টি। অত:পর কন্যাদ্বয়ের নামে বানিহালা ইউনিয়নের নামকরণ স্থিতহয়।
তথ্য সূত্র:  সংগৃহীত। 


Share with :

Facebook Twitter